পশ্চিমবঙ্গ যুবশ্রী অর্পন যোজনা ২০১৯-২০ কর্মসংস্থানের জন্য | West Bengal Yuvashree Arpan Scheme (Prakalpa) in Bengali

পশ্চিমবঙ্গ যুবশ্রী অর্পন যোজনা ২০১৯-২০ কর্মসংস্থানের জন্য (নতুন তালিকা, অনলাইন আবেদনপত্রের পদ্ধতি, ও যোগ্যতার মানদন্ড) [West Bengal Yuvashree Arpan Scheme (Prakalpa) in Bengali)

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যুবশ্রী অর্পন প্রকল্পের প্রচলন করেছেন। রাজ্য সরকারের এই উদ্যোগ কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরিতে সাহায্য় করবে। এটি যুব সমাজকে নিজের ব্যবসা শুরু করতে সাহায্য় করবে। রাজ্য সরকারের এই আর্থিক সাহায্য় রাজ্যের প্রত্যেক যুবক যুবতীকে সরাসরি প্রদান করা হবে।

West Bengal Yuvashree Arpan Scheme

যোজনার নাম যুবশ্রী অর্পন যোজনা
যোজনা চালু হওয়ার দিন মার্চ ২০১৯
যোজনা চালু করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
এই যোজনার লক্ষ্য রাজ্যের যুবসমাজের কর্মসংস্থান
লক্ষ্য উপভোক্তা রাজ্যের যুবক, যুবতী
উপভোক্তার সংখ্যা ৫০,০০০ যুবক যুবতী
আর্থিক সহযোগিতার পরিমাণ এক লক্ষ

 

যুবশ্রী অর্পন প্রকল্পের বৈশিষ্ট্যগুলি কী?

  • এই যোজনার লক্ষ্য – যুবশ্রী অর্পন যোজনা চালু করা হয়েছে রাজ্যের যুবসমাজকে সাহায্য় করার লক্ষ্যে। যুবকদের ব্যবসা করার ইচ্ছেকে বাস্তবায়িত করার জ্য সরকারি তরফে আর্থিক সাহায্য় করা হবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের তত্ত্বাবধানে।
  • এই যোজনার উপভোক্তা – এই যোজনার নিয়ম অনুযায়ী রাজ্যে বসবাকারী প্রায় ৫০,০০০ হাজার যুবক যুবতী এই প্রকল্পের দ্বারা উপকৃত হবেন। তবে রাজ্য সরকারের তরফে যোগত্যার মাপকাঠি নির্দেশিত করা হয়েছে এই সহায়তা পাওয়ার জন্য।
  • প্রকল্পেপ সহায়তা – ক্ষুদ্র, ছোট ও মধ্যম মাপের সংস্থাগুলিকে এই যোজনার আওতায় আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে। একলক্ষটা প্রতিটি যুবক যুবতীর হাতে তুলে দেওয়া হবে যাতে তারা তাদের ব্যবসা শুরু করতে পারে।
  • কর্মসংস্থানের পরিস্থিতি উন্নতির জন্য উদ্যোগ – নোটবন্দীর কারণে রাজ্যে বেকারত্ব বৃদ্ধি পাওয়ায় পশ্চিমবঙ্গ সরকার এই যোজনা বাস্তবায়িত করার পরিকল্পনা করেছেন। এই যোজনায় রাজের যুবসমাজের ব্যাপক সুবিধা হবে। এর সাহায্য়ে রাজ্যে বেকারত্বের হার করবে বলেও আশাবাদী সরকার।

রাজ্যে এই যোজনার বাস্তবায়নের ফলে রাজ্যের অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নতি হবে। আগামী ১ এপ্রিল ২০১৯ থেকে রাজ্যে এই প্রকল্পের অধীনে আর্থিক সহায়তা প্রদান শুরু করা হবে। এই যোজনার পাশাপাশি স্কিল ডেভলপমেন্ট ট্রেনিংও শুরু করা হবে।

পশ্চিমবঙ্গ যুবশ্রী অর্পন যোজনার যোগ্যতার মানদন্ড –

  • যাচাইকরণ – কেবলমাত্র পশ্চিমবঙ্গে বসবাসকারী যুবক যুবতীরাই এই যোজনার দ্বারা উপকৃত হবেন। অন্য রাজ্যের যুবক যুবতীরা এই সুবিধার লাভ নিতে পারবেন না।
  • ব্যাবসার আইডিয়া – যে যুবক যুবতীদের কাছে নতুন ব্যাবসার আইডিয়া রয়েছে ও তারা ব্যবসা শুরু করতে চায় তারা এই যোজনায় আবেদন করতে পারেন। এরফলে তারা নিজের পাশাপাশি অন্যের জন্যও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারেন।
  • টেকনিক্যাল ডিগ্রি – যে যুবক যুবতীদের কাছে স্বীকৃত প্রতিষ্ঠানের টেকনিক্যাল ডিগ্রি রয়েছে তারা এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারেন।
  • শিক্ষা – আইটিআই পাশ অথবা ডিপ্লোমাধারীরা এই প্রকল্পের সুবিধা পাবেন।

পশ্চিমবঙ্গ যুবশ্রী অর্পন প্রকল্পে প্রয়োজনীয় নথি ও আবেদন করার পদ্ধতি

  • ব্যাক্তিগত বিবরণ – ব্যাক্তিগত নথি যেমন ভোটার কার্ড অথবা আধার কার্ডের কপি জমা দিতে হবে আবেদনকারীর পটভূমি খতিয়ে দেখার জন্য। কেবল এ রাজ্যের যুবক যুবতীরাই এই প্রকল্পের আওতায় আর্থিত সাহায্য় পাবেন।
  • শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রমাণ – আবেদনকারীকে অবশ্যই ডিপ্লোমাধারী কিংবা আইটিআই প্শা হতে হবে।
  • টেকনিক্যাল ডিগ্রির প্রমাণ – আবেদনকারীরে অবশ্যই টেকনিক্যাল ডিগ্রির সার্টিফিকেট দেখাতে হবে উক্ত যোজনার সাহায্য় পাওয়ার জন্য।

পশ্চিমবঙ্গ যুবশ্রী অর্পন যোজনার আবেদনপত্র ডাউনলোড করার পদ্ধতি

পশ্চিমবঙ্গ যুবশ্রী অর্পন প্রকল্পে কিভাবে অনলাইনে আবেদন করতে হবে সে বিষয়ে রাজ্য সরকারের তরফে এখনও কোনও ঘোষণা করা হয়নি। যখনই এই ঘোষণা করা হবে উপভোক্তারাই সবার প্রথমে এটি জানতে পারবেন। এই বিষয়ে যাবতীয় তথ্য সংশ্লিষ্ট ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।

এই যোজনাটি পশ্চিমবঙ্গে চালু করা হয়েছে যাতে রাজ্যের বেকারত্বের হার কমে ও রাজ্যের যুবক যুবতীরা কর্মসংস্থান পায়। রাজ্যের যুব সমাজের উন্নতি হলে রাজ্যের অর্থনৈতিক অবস্থারও উন্নতিসাধন সম্ভব। রাজ্য সরকার ইতিমধ্যেই এই প্রকল্পের খাতে ৫০০কোটি টাকা দান করেছে।

Other links –

Leave a Comment